শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪, ৪ শ্রাবণ, ১৪৩১

বিমানবন্দরে পৌঁছে না দেওয়ায় প্রেমিকের বিরুদ্ধে মামলা

প্রেমিক-প্রেমিকার সম্পর্ক টিকিয়ে রাখাটা বেশ কঠিন। এর জন্য একে অপরের প্রতিশ্রুতি পূরণ করা জরুরি। মৌখিক প্রতিশ্রুতি ঠিকঠাক পূরণ না হলে দুজনের মধ্যে অনেক সময় ঝগড়াঝাটি হতে পারে। কিন্তু নিউজিল্যান্ডের এক নারী বিষয়টিকে আরও গুরুতর হিসেবে নিয়েছেন। পূর্ব প্রতিশ্রুতি অনুযায়ী তাকে বিমানবন্দরে পৌঁছে দিতে না আসায় প্রেমিকের বিরুদ্ধে সোজা মামলা ঠুঁকে দিয়েছেন তিনি।

ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম দ্য গার্ডিয়ানের খবরে জানা যায়, সম্প্রতি বন্ধুদের সঙ্গে একটি কনসার্টে যাওয়ার পরিকল্পনা করেছিলেন ওই নারী। দীর্ঘদিনের প্রেমিক তাকে আশ্বস্ত করেছিলেন, নির্ধারিত দিনে প্রেমিকাকে গাড়িতে করে বিমানবন্দরে পৌঁছে দেবেন এবং তার দুটি পোষা কুকুরের দেখভাল করবেন।

যাত্রার একদিন আগে ওই নারী প্রেমিককে মেসেজ পাঠিয়ে জানিয়ে দেন, তাকে সকাল ১০টা থেকে সাড়ে ১০টার মধ্যে বাসা থেকে নিয়ে যেতে হবে।

কিন্তু নির্ধারিত সময় পেরিয়ে গেলেও প্রেমিক আসেননি। ফলে ফ্লাইট মিস করেন প্রেমিকা। আর তাতেই রেগে আগুন হয়ে যান তিনি।

গত বৃহস্পতিবার নিউজিল্যান্ডের বিরোধ ট্রাইব্যুনাল প্রকাশিত এক আদেশে জানানো হয়, প্রেমিকের কারণে ফ্লাইট মিস করায় ওই নারী পরের দিন গন্তব্যে যাওয়ার টিকিট কাটেন। এছাড়া পোষা কুকুর দুটিকে বিশেষ জায়গায় রেখে যেতেও বাড়তি অর্থ গুণতে হয় তাকে। এই সব অর্থ ক্ষতিপূরণ চান তিনি।

শুধু তা-ই নয়, নারীর দাবি, তিনি তার প্রেমিককে নিয়ে ছুটি কাটানোর জন্য ফেরির টিকিট কেটেছিলেন। ক্ষতিপূরণ হিসেবে সেই অর্থও দাবি করেন তিনি।

কিন্তু তার এই দাবিতে সাড়া দেয়নি আদালত। ট্রাইব্যুনালের রেফারি ক্রিসিয়া কাউই তার রায়ে বলেছেন, অংশীদার, বন্ধু এবং সহকর্মীরা সামাজিকভাবে বিভিন্ন আয়োজন করে থাকে। কিন্তু তারা প্রতিশ্রুতি পালনে বাধ্য থাকবে, এমনটি দেখানোর মতো কিছু না থাকলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া যায় না।

তিনি বলেন, বন্ধুরা প্রতিশ্রুতি পূরণে ব্যর্থ হলে অন্যদের আর্থিক ক্ষতি হতে পারে। কিন্তু তারা হয়তো এর জন্য ক্ষতিপূরণ পাবেন না। এমন অনেক উদাহরণই রয়েছে, যেখানে বন্ধুরা হতাশ করেছে।

রায়ে বলা হয়েছে, ওই নারীর ক্ষতি পুনরুদ্ধারযোগ্য নয়। তার মামলাটি খারিজ করে দিয়েছেন আদালত।

Join Manab Kallyan