শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪, ৪ শ্রাবণ, ১৪৩১

মাদক সেবনের প্রতিবাদ, তিনজনকে পিটিয়ে জখম

মানিকগঞ্জের শিবালয়ে মাদক সেবনের প্রতিবাদ করায় এক স্কুলছাত্রসহ তিনজনকে মেরে দাঁত ভেঙে দেওয়ার অভিযোগ উঠেছে। আহতদের উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। বুধবার (১৯ জুন) বিকেলে উপজেলার উথলী ইউনিয়নের মেহেদিপুর গ্রামে এ ঘটনা ঘটে। রাতে থানায় মামলা হয়েছে।

আহতরা হলেন, মেহেদিপুর গ্রামের হায়াত আলীর ছেলে মাসিদুল ইসলাম (২৮), বছির উদ্দিনের ছেলে আশরাফুল আলম (২০) ও দশম শ্রেণির ছাত্র সাকিবুল হাসান (১৬)।

আহত সাকিবুল হাসানের চাচা শফিকুল ইসলাম জানান, উথলী ইউনিয়নের ৪নং ওয়ার্ডের মেম্বার রোকন উদ্দিন রিপনের ভাতিজা রাশেদুল ইসলাম মুরাদ এলাকার একজন চিহ্নিত মাদক কারবারি। তিনি ও তার সহযোগীদের অত্যাচারে অতিষ্ঠ এলাকাবাসী। সম্প্রতি মাদক সেবনের প্রতিবাদ জানান সাকিবুল, আশরাফুল, মাসিদুল ও বজলুর রহমানসহ গ্রামের কয়েকজন। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন মুরাদ ও তার সহযোগীরা। কিছুদিন আগে বজলুর রহমানকে মারধর করেন তারা।

এরপর ঈদ উল আজহার আগের দিন সন্ধ্যায় মুরাদের নেতৃত্বে ৬-৭ জন সাকিবুলকে মারধর করেন। এ সময় তার দাঁত ভেঙে দেওয়া হয়। এমনকি ঈদের দিন সন্ধ্যায় মাসিদুল ইসলামের বাড়িতে হামলা করেন মুরাদ ও তার সহযোগীরা। এ সময় তাকে না পেয়ে তার বাবাকে মারপিট ও একটি অটোরিকশা ভাঙচুর করা হয়।

বুধবার (১৯ জুন) মাদক কারবারিদের শাস্তির দাবিতে এলাকাবাসীর গণস্বাক্ষরযুক্ত অভিযোগ মানিকগঞ্জ জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) ও থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তার (ওসি) কাছে জমা দেওয়া হয়। অভিযোগ দেওয়ার কথা শুনে আরও ক্ষিপ্ত হয়ে ওঠেন মাদক কারবারিরা। বুধবার বিকেলে হামলা চালিয়ে মাসিদুল, আশরাফুল ও সাকিবুলকে বেধরক মারপিট করেন অভিযুক্তরা। এতে আহতদের দাঁত ভেঙে যাওয়াসহ শরীরের বিভিন্ন স্থানে মারাত্মক জখম হয়েছে। দ্রুত তাদের উদ্ধার করে শিবালয় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

শিবালয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আব্দুর রউফ সরকার জানান, মারপিটের ঘটনায় থানায় লিখিত অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনা তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Join Manab Kallyan