শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪, ৪ শ্রাবণ, ১৪৩১

মিশরে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের ঈদ পুনর্মিলনী

বিশ্বের অন্যতম প্রাচীন বিদ্যাপীঠ মিশরের রাজধানী কায়রোর জামেয়াতুল আজহার বা আল আজহার বিশ্ববিদ্যালয়। অসংখ্য বিদেশি ছাত্রছাত্রী আর ভিন্ন ভিন্ন সংস্কৃতির এক অসাধারণ মেলবন্ধন বিশ্ববিদ্যালয়টিতে বাংলাদেশিদের আগমণের ইতিহাস তিন দশকের। তবে গত কয়েক বছরে বিশেষ করে বিভিন্ন শাস্ত্রে উচ্চতর ডিগ্রি নিতে প্রায় ২ হাজার পাঁচশ শিক্ষার্থী গেছেন দেশটিতে।

বাংলাদেশি ছাত্রদের শিক্ষা-দীক্ষা, বাংলা সংস্কৃতি চর্চাসহ বিভিন্ন সুযোগ সুবিধার ধারা অব্যাহত রাখতে ‘আযহার ওয়েলফেয়ার সোসাইটি বাংলাদেশসহ বেশ কয়েকটি বাংলাদেশি ছাত্র সংগঠন কাজ করে যাচ্ছে।

মিশরে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের ঈদ পুনর্মিলনী

বরাবরের মতই এবার গত রোববার (১৬ জুন) রাজধানী কায়রোতে ছকরে কুরেশ বিখ্যাত গোল্ডেন প্যালেসে বাংলাদেশি ছাত্র সংগঠন আযহার ওয়েলফেয়ার সোসাইটির ব্যানারে মুসলমানদের অন্যতম উৎসব ঈদুল আজহার পুনর্মিলনীর আয়োজন করা হয়।

মিশরে অবস্থানরত সোসাইটির সর্বস্তরের সদস্য, সহযোগী সদস্য ও শুভাকাঙ্খী প্রবাসীরা প্রবাসের নিরস জীবনে সবাই মিলে ঈদের আনন্দ ভাগাভাগি করে নিতে সমবেত হয়েছিলেন এই অনুষ্ঠানে।

মিশরে বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের ঈদ পুনর্মিলনী

শুরুতেই সায়েমুল হক জাওয়াদ ও সফিউল্লার যৌথ সঞ্চালনায় ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন সহ-সভাপতি ফয়েজ আহমাদ আজহারী। শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য তাদের দায়িত্ব ও কর্তব্য শীর্ষক গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করেন সংগঠনটির সিনিয়র সদস্য মাওলানা ড. হাসিবুর রহমান। অনুষ্ঠানে ভিডিও বার্তায় মিশরে অবস্থানরত শিক্ষার্থীদের উদ্দেশ্য দিক-নির্দেশনামূলক বিশেষ বক্তব্য দেন ঢাকা থেকে ইসালামিক ইউনিভার্সিটি অব টেকনোলজির অধ্যাপক, সংগঠনটির কেন্দ্রীয় কমিটির উপদেষ্টা প্রফেসর শাহেদ হারুন আজহারী। অস্ট্রিয়ার ভিয়েনা ইসলামী সংস্কৃতি কেন্দ্রের খতিব সংগঠনের সিনিয়র সদস্য অধ্যাপক আব্দুল মতিন আজহারী, শাব্বীর আহমাদ খান আজহারী ও হুসাইন আহমাদ আজহারীও বক্তব্য রাখেন।

ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানে হামদ-নাত পরিবেশন, নবীন বরণ ও ছোটদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করা হয়। শিক্ষার্থীদের ঈদ পুনর্মিলনী অনুষ্ঠানটিতে চারশরও অধিক প্রবাসী ও শিক্ষার্থী অতিথিকে কোরবানির মাংসে আপ্যায়ন করা হয়।

Join Manab Kallyan